যশোরে নকল করোনা সুরক্ষাসামগ্রী তৈরির কারখানার সন্ধান

60

কারখানার নেই কোন অনুমোদন, নিয়োগ দেয়া হয়নি স্বীকৃত কেমিস্টও। অক্ষরজ্ঞানহীন শ্রমিক ইচ্ছামতো সব ঝুঁকিপূর্ণ রাসায়নিক উপাদান মিশিয়ে তৈরি করছে হ্যান্ডস্যানিটাইজার, টাইলস, টয়লেট ক্লিনার, ব্যাটারির পানিসহ বিভিন্ন দ্রব্যাদি। কারখানায় ব্যবহৃত এসিডসহ অন্যান্য দাহ্য পদার্থ ফেলে রাখা হয়েছে উঠোনে। যশোর শহরতলীর কিসমত নওয়াপাড়ায় এমন অবৈধ কারখানার সন্ধান পেয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালত করোনা সুরক্ষা সামগ্রী তৈরির এমন অবৈধ কারখানায় অভিযান চালায়।

অভিযানকালে কারখানাটি ‘সিলগালা’ করাসহ কারখানার মালিক মামুনুর রশীদকে এক বছরের কারাদণ্ড ও দুইলাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট কাজী আতিকুর রহমান জানান, বিএসটিআই অনুমোদন ছাড়াই আবাসিক এলাকায় হ্যান্ডস্যানিটাইজার, ভিক্সল, টয়লেট ক্লিনার, ব্যাটারির পানি উৎপাদন করা হচ্ছিল। কেমিস্ট ছাড়াই পণ্য উৎপাদন, মোড়কিকরণ, খোলাস্থানে হাইড্রোক্লোরিক এসিড রাখাসহ বিভিন্ন অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করে তাকে সাজা প্রদান করা হয়েছে। অভিযানকালে র্যাব ও পুলিশ অংশ নেয়।