ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে চায়ে মেশান একটি উপাদান

137

সারাদিনের ক্লান্তি দূর করতে বা দিনটা শুরু করতে চা ছাড়া অনেকের চলেই না। বিভিন্ন ধরনের চা সবাই খেয়ে থাকে। কালো চা, দুধ চা, লেবু চা, আদা চা, মধু চা, তুলসি চা আরো কত রকম চা যে হয়ে থাকে। বাঙালি মানেই যেন চা বিলাসী। তবে হলুদ চা খেয়েছেন কি?

হলুদ চায়ের রয়েছে চমকপ্রদ সব স্বাস্থ্য উপকারিতা। বিপাক বাড়ানো থেকে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায় এই হলুদ চা। হলুদ চা বানানো যেমন সহজ তেমনি এটি একটি সুস্বাদু পানীয়ও বটে। এই চা পান করলে অনেক রকম রোগ ব্যাধির প্রকোপ কমে যায়। জেনে নিন হলুদ মেশানো চায়ের স্বাস্থ্য উপকারিতাগুলো-

দৃষ্টিশক্তি ভালো হয়
দৃষ্টিশক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে হলুদ। হলুদ চায়ে রয়েছে হলুদের এই উপকারী উপাদান যা চোখের রেটিনাকে রক্ষা করে। ফলে দৃষ্টিশক্তি হারানোর ভয় থাকেনা।

রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়
হলুদে উপস্থিত কারকিউমিন রক্তে জমতে থাকা কোলেস্টেরলের মাত্রাকে কমিয়ে দেয় ফলে হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে যায়।

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়
নিয়মিত হলুদ চা পান করলে ত্বক প্রাকৃতিকভাবেই উজ্জ্বল হয়। এছাড়া দীর্ঘদিন উজ্জ্বলতা ধরে রাখতেও সক্ষম হয়।

ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়
হলুদে থাকা অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি প্রপার্টিজ ও অ্যান্টি অক্সিডেন্ট শরীরে ক্যান্সারের কোষ জন্মাতে দেয় না।

এছাড়াও হলুদ চা হজম ক্ষমতা বাড়ায়, স্মৃতিশক্তির বিকাশ ঘটায়, ওজন নিয়ন্ত্রণ করে, মাথার খুশকি সমস্যা দূর করে,আর্থারাইটিসের ব্যথা কমায়।

কীভাবে বানাবেন হলুদ চা?

প্রথমে একটি পাত্রে ২ কাপ পরিমাণ পানি নিয়ে গরম করুন। এরপর গরম পানিতে এক চিমটি পরিমাণ হলুদ গুঁড়া মেশান। এরপর হলুদ মেশানো পানি ভালোভাবে ফোটান। চুলার জ্বাল বন্ধ করে ১০ মিনিট ঢেকে রেখে দিন। পানি ছেঁকে কাপে ঢেলে নিন। চাইলে এরসঙ্গে গোলমরিচ, লেবুর রস ও মধু মিশিয়ে নিতে পারেন। আবার সাধারণ রং চায়ের সঙ্গেও হলুদ মিশিয়ে পান করতে পারেন।

সূত্র:ইন্ডিয়ানএক্সপ্রেস