শচিনের সঙ্গে তুলনাই কি কাল হলো তার!

73

শচিন টেন্ডুলকারের মতো কিংবদন্তির সঙ্গে তুলনা, পৃথ্বি শ’র ক্যারিয়ারে এর চেয়ে বড় প্রাপ্তি আর কি হতে পারে! তবে অধিক প্রত্যাশা অনেক সময় মাথার ওপর বোঝা হতে পারে। যেমনটা হলো ডানহাতি এই ব্যাটসম্যানের বেলায়। ক্রিকেট ঈশ্বরের এত বড় নামের ভার কিশোর পৃথ্বি নিতে পারলেন না, জাতীয় দল থেকে ছিটকে পড়লেন অল্প সময়েই।

সব কিছু ঠিকভাবেই শুরু হয়েছিল। ২০১৭ সালে রঞ্জি ট্রফি আর দুলীপ ট্রফির অভিষেকেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে লিটল মাস্টারকে মনে করিয়েছিলেন পৃথ্বি। তারপর অনূর্ধ্ব-১৯ দলকে নেতৃত্ব দিয়ে বিশ্বকাপ জেতান।

দুর্দান্ত প্রতিভাবান পৃথ্বির ১৮ বছর বয়সে টেস্ট অভিষেক হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। সেখানেও চমক, ভারতের সবচেয়ে কম বয়সী অভিষিক্ত হিসেবে টেস্ট সেঞ্চুরি করেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। সেখান থেকে তো পেছনে ফিরে তাকানোর কথা ছিল না।

কিন্তু পৃথ্বিকে পেছনে তাকাতেই হলো। গত বছর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজের আগে অ্যাঙ্কেলের চোটে পড়লেন। তারপরই সবচেয়ে বড় ধাক্কা। নিষিদ্ধ ওষুধ সেবন করে হলেন আট মাসের জন্য নিষিদ্ধ।

পৃথ্বির মতো এক প্রতিভার এভাবে ছিটকে পড়া মানতে পারছেন না ভারতের সাবেক টেস্ট ওপেনার ওয়াসিম জাফর। তিনি বলেন, ‘সে স্পেশাল ট্যালেন্ট, যা কিছু হলো আমি খুবই হতাশ। তার জন্য আমার খুব খারাপ লাগে। কারণ সে খুবই, খুবই প্রতিভাবান। কিন্তু বড় হতে হলে তাকে আরও শৃঙ্খল হতে হবে। সে এমন একটা সার্কেলের মধ্যে আছে যেখানে বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ানের মতো রোল মডেল। তারা সবাই ভীষণ সুশৃ্ঙ্খল।’

ভারতের হয়ে ৪টি টেস্ট এবং ৩টি ওয়ানডে খেলা পৃথ্বি শ প্রথম নজরে এসেছিলেন স্কুল ক্রিকেটে। ২০১৩ সালে ৩৩০ বলে ৫৪৬ রানের রেকর্ড ইনিংস খেলেছিলেন ১৪ বছরের পৃথ্বি। সেই থেকেই শচিনের সঙ্গে তুলনা শুরু।

এই তুলনাটা যে তার জন্য চাপ, দিল্লি ক্যাপিটালসের অনলাইন সেশনে সে কথা স্বীকার করেন পৃথ্বি। তিনি বলেন, ‘তার (শচিন) সঙ্গে মানুষ আমাকে তুলনা করে, এটা একটা চাপ। তবে আমি এটাকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছি। আমি তার মতো খেলতে চেষ্টা করি। তিনি তো ক্রিকেট ঈশ্বর।’

তবে ওয়াসিম জাফর মনে করছেন, আন্তর্জাতিক আঙিনায় চাপ থাকবেই। এই চাপটা সামলানো শিখতে হবে পৃথ্বিকে। তিনি বলেন, ‘যখন আপনি টপ লেভেলে পারফর্ম করবেন, মিডিয়া আর জনগণ আপনাকে নিয়ে কথা বলবেই। এটা মানিয়ে নেয়াটা যার যার নিজের। বিরাট (কোহলি) তো তাকে মাটিতে রেখেছে। মুম্বাইয়ের আশপাশ থেকে যত উদীয়মান ব্যাটসম্যান আসে, তাদের শচিনের সঙ্গে তুলনা করা হয়। পারফরম্যান্স দিয়ে সব কিছু সামলাতে হয়।’