অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হতে পারে শুটিং!

149

বুধবার থেকে টলিপাড়ায় শুটিং শুরু হওয়ার কথা থাকলেও তা শুরু হয় নি। শোনা যায়নি কোন লাইট,ক্যামেরার অ্যাকশন। শিল্পীরা শুটিং শুরুর আশায় বুক বেঁধে থাকলেও আর্টিস্ট ফোরামসহ সংগঠনের মিটিংয়ে এ জট কাটে নি।

বীমা সংক্রান্ত সমস্যা থাকায় আর্টিস্ট ফোরাম শুটিং শুরু করতে নারাজ। যতক্ষণ না পর্যন্ত শিল্পীদের স্বাস্থ্য বীমার কাগজ তাঁরা হাতে পাচ্ছেন, ততক্ষণ পর্যন্ত কোনও শিল্পী শুটিংয়ে অংশ নেবেন না, সাফ জানিয়ে দেওয়া হয়েছে তাদের পক্ষ থেকে।

মঙ্গলবার রাতে আর্টিস্ট ফোরামের তরফে জানানো হয়েছে, “যেহেতু এখনও শুটিং শুরুর দিন থেকে শিল্পীদের স্বাস্থ্য ও বীমা সংক্রান্ত বিষয়ে চ্যানেল ও প্রযোজকরা আমাদের পূর্ণ আশ্বাস দিতে পারেননি, তাই এই মূহূর্তে ফোরাম আপনাকে শুটিংয়ে যোগদান করার পরামর্শ দিতে পারছে না।”

বুধবারের পরিবর্তে তাহলে কবে থেকে শুটিং শুরু হচ্ছে? এই প্রশ্নটাই ঘুরপাক খাচ্ছে সিনে পাড়ায়।

দিন কয়েক আগেই ১০ জুন থেকে সেটে ফেরার ছাড়পত্র পেয়েছিলেন সিরিয়ালের অভিনেতা-অভিনেত্রীরা। এরপর রবিবার মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের সঙ্গে মিটিংয়ের পর জানানো হল যে ধারাবাহিকের পাশাপাশি সিনেমার শুটিংও করা যাবে ১০ জুন থেকেই। অতঃপর স্বাস্থ্যবিধি মেনে জোরকদমে কাজে ফেরার খবরেই আশার আলো দেখছিলেন শিল্পী এবং কলাকুশলীরা।

কিন্তু রবিবার শুটিংয়ের গাইডলাইন নিয়ে মিটিংয়ের ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই সোমবার সন্ধেবেলা আর্টিস্ট ফোরামের তরফে এল নতুন বার্তা- “নিজ দায়িত্বে শুটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিন, এখনও কোনওরকম চূড়ান্ত গাইডলাইন আমাদের হাতে আসেনি!” যে বার্তার পরই উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেন শিল্পীরা।

আর্টিস্ট’স ফোরামের কার্যকরী সভাপতি শঙ্কর চক্রবর্তী জানিয়েছেন, “আমরা বলেছিলাম আমাদের শুটিং করতে কোনও বাধা নেই। কিন্তু এখনও বীমার নথিপত্র আমাদের হাতে আসেনি। তাই আর্টিস্টদের সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে আমরা চ্যানেল ও প্রযোজকদের অনুরোধ করেছিলাম, এই সময়ের মধ্যে কারও কোনও অঘটন ঘটলে তার দায়িত্ব যেন তাঁরা নেন, কিন্তু সেটা মানতে তাঁরা নারাজ।”

ডব্লিউএটিপি-র প্রেসিডেন্ট শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন “আমরা এবং চ্যানেল শুটিং শুরু করতে প্রস্তুত ছিলাম। কিন্তু যে দাবি আর্টিস্ট’স ফোরাম করেছে, সেটা চ্যানেল বা আমাদের পক্ষে মানা সম্ভব নয়। এখন শুটিং শুরু না হলে চ্যানেল অনির্দিষ্টকালের জন্য শ্যুটিং শুরু করা স্থগিত করে দিতে পারে।”