আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা ট্রাম্পের

87

আফগানিস্তানে মার্কিন সেনাবাহিনীর যুদ্ধাপরাধ তদন্তের নির্দেশ দেওয়ার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) কর্মকর্তাদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত নির্বাহী আদেশে স্বাক্ষর করেছেন তিনি।

আদেশে মার্কিন অর্থমন্ত্রী স্টিভেন মানচিনের সঙ্গে পরামর্শক্রমে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেওকে যুক্তরাষ্ট্রে থাকা আইসিসির কর্মকর্তাদের সম্পদ বাজেয়াপ্তের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। এছাড়া আইসিসির এসব কর্মকর্তাকে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে পম্পেওকে।

২০০৩ থেকে ২০১৪ সালে আফগানিস্তানে অভিযানকালে মার্কিন বাহিনীর যুদ্ধাপরাধ এবং তালেবানের নির্বিচারে বেসামরিক নাগরিক হত্যাকাণ্ডের অভিযোগ তদন্তে আবেদন করেছিলেন আইসিসির আইনজীবী ফাতাও বেনসুদা। এছাড়া কারাগারে বন্দিদের ওপর আফগান বাহিনী, মার্কিন বাহিনী ও সিআইয়ের নির্যাতনের অভিযোগ তদন্তের আবেদনও করা হয়েছিল। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে গত বছর ট্রাম্প প্রশাসন আইসিসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের ওপর যুক্তরাষ্ট্রে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল।

২০০২ সালে প্রতিষ্ঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতকে যুক্তরাষ্ট্র স্বীকৃতি দেয়নি। এই আদালত সাধারণত গণহত্যা, যুদ্ধাপরাধ ও মানবতাবিরোধী অপরাধের জন্য দায়ীদের অভিযুক্ত করে থাকে। যুক্তরাষ্ট্রের দাবি, যেহেতু তারা আইসিসির সদস্য নয়,সেহেতু তাদের বিরুদ্ধে কেনো ধরনের তদন্তের আদেশ দিতে পারে না এই আদালত।

হোয়াইট হাউজের প্রেস সেক্রেটারি কাইলিগ ম্যাকানি এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের পদক্ষেপ আমেরিকান জনগণের অধিকারের ওপর হামলা এবং আমাদের স্বার্বভৌমত্বের ওপর হস্তক্ষেপ।’