বাবা দিবসে সন্তানদের নির্মমতার শিকার বাবা, কপালে জুটল বেওয়ারিশ দাফন

73

ছোটকাল থেকে সন্তানদের কোলে পিঠে মানুষ করেন বাবা। সন্তান বড় হলেও বটগাছের মতো ছায়া দেন জন্মদাতারা। কিন্তু সেই জন্মদাতার সঙ্গে নির্মম আচরণ। সামান্য শ্বাসকষ্ট থাকায় বাবা দিবসেই নিজেদের বৃদ্ধ বাবাকে ডাস্টবিনে ফেলে চলে গেছে সন্তানরা। আর সেই বাবার মৃত্যুর পর বেওয়ারিশ হিসেবে লাশ হয়েছে দাফন।

রোববার বিকেলে ওই মৃত বৃদ্ধের লাশ দাফন করেছে আঞ্জুমানে মফিদুল ইসলাম। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংস্থাটির কুমিল্লা শাখার সহকারী পরিচালক সাজ্জাদ হোসেন।

তিনি জানান, কুমিল্লা কোতোয়ালি থানার পুলিশের অনুরোধে পরিচয় শনাক্ত করতে না পারায় বৃদ্ধ খোরশেদ আলমকে বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন করা হয়েছে।

কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই শাহাব উদ্দিন জানান, শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় ৯৯৯ এর মাধ্যমে কুমিল্লা নগরীর একটি ডাস্টবিনের পাশে এক বৃদ্ধের চিৎকার করার খবর পান। এতে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে বৃদ্ধকে দেখতে পান তিনি। ওই সময় বৃদ্ধ শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন। তার দুচোখ জুড়ে পানি ঝরছিল। বাঁচার আকুতি করছিলেন ওই বৃদ্ধ। তবে বৃদ্ধ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত কিনা চিন্তা না করেই উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের জানিয়ে তাকে কুমিল্লা হাসপাতালে নিয়ে যান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

তিনি আরো জানান, হাসপাতালে ভর্তির আগে অ্যাম্বুলেন্সে শুয়ে থাকা অবস্থায় নিজের পরিচয় দেন বৃদ্ধ। নাম বলার তার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালী বলে জানান। তার সন্তানরা শনিবার রাতে তাকে ডাস্টবিনে ফেলে যায়। তার অবস্থা বেশি খারাপ থাকায় বিস্তারিত পরিচয় জানা সম্ভব হয়নি। হাসপাতালে নেয়ার কিছুক্ষণ পরে তিনি মারা যান।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি মো. আনোয়ারুল হক জানান, মৃত বৃদ্ধের বাড়ি নোয়াখালী। মৃত্যুর আগে পুলিশকে এমনটি জানিয়েছেন। কিন্তু বিস্তারিত পরিচয় না পাওয়ায় রোববার লাশটি আঞ্জুমানে মফিদুল ইসলামে হস্তান্তর করি। সংগঠনটি বেওয়ারিশ হিসেবে লাশটি দাফন করেছে।